সভ্যতার আলো

সভ্যতার আলো, তার লিখনী দিয়ে আরো উন্নত ও সমৃদ্ধশালী সভ্য জাতি গঠনে অনন্য ভূমিকা রাখবে

নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে এবং দেশটির গণতন্ত্রের হাল নিয়ে উদ্বিগ্ন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে এবং দেশটির গণতন্ত্রের হাল নিয়ে উদ্বিগ্ন নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। একটি মার্কিন পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নোবেলজয়ী এই অর্থনীতিবিদ মোদির কঠোর সমালোচনা করেছেন।

ভারতে এখন কট্টর হিন্দুত্বের দাপট উল্লেখ করে অমর্ত্য সেন বলেন, ‘বহু ধর্ম ও বহু জাতির দেশ ভারতকে বোঝার মতো মনের প্রসারই নেই মোদির।’

আনন্দবাজার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, অমর্ত্যের মতে- ‘মোদীর সব চেয়ে বড় সাফল্য হলো গোধরা মামলা থেকে নিজেকে মুক্ত করা। এর ফলে ২০০২-এর যে-ঘটনায় হাজারের বেশি মানুষ খুন হয়েছিলেন, তার পিছনে মোদির একটা ভূমিকা ছিল ভারতে অনেকে তা বিশ্বাসই করেন না।’

গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভটির প্রসঙ্গে অমর্ত্য বলেন, সরকার যদি বিরুদ্ধে থাকে, তবে সরকারি শুধু নয়, সম্ভবত অনেক বেসরকারি বিজ্ঞাপনও পায় না সংবাদমাধ্যম। ফলে স্বাধীন সংবাদপত্র বা সংবাদ চ্যানেল পাওয়াই দুষ্কর।

স্টুয়ার্ট মিলের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘মানুষ ভয়ে আছেন। এটা গণতন্ত্রের পন্থা নয়। সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ কী চান, সেটা বোঝারও পথ নয় এটা।’

নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ আরো বলেন, ‘জন স্টুয়ার্ট মিলের কাছ থেকে বড় যে বিষয়টি আমরা জেনেছি তা হল, গণতন্ত্র মানে আলোচনার ভিত্তিতে চলা সরকার। ভোট যে ভাবেই গোনো, আলোচনাকে ভয়ের বস্তু করে তুললে তুমি গণতন্ত্র পাবে না।’