সভ্যতার আলো

সভ্যতার আলো, তার লিখনী দিয়ে আরো উন্নত ও সমৃদ্ধশালী সভ্য জাতি গঠনে অনন্য ভূমিকা রাখবে

কৃষিক্ষেত্রে ৫৫ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছে সরকার ॥ কৃষিমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে সরকার বিগত ৮ বছরে শুধুমাত্র সারেই ৫৫ হাজার ৯৯৮ কোটি টাকা ভর্তুকি দিয়েছে। ডিজেলে ভর্তুকি দেয়া হয়েছে ৭৫০ কোটি টাকা। চলতি অর্থ-বছরে সংশোধিত বাজেটে কৃষি খাতে ৬ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

বুধবার জাতীয় সংসদে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য জাহান আরা বেগম সুরমার প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এ তথ্য জানান। তিনি আরও জানান, বর্তমান সরকার রাষ্ট্রক্ষমতা পরিচালনার দায়িত্ব গ্রহণের পর কৃষি উন্নয়নকে সর্বোচ্ছ অগ্রাধিকার প্রদান করেছে। এর অংশ হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই সারের মূল্যে কৃষকদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নিয়ে আসার জন্য ভর্তুকি বৃদ্ধি করে। তিনি জানান, আন্তর্জাতিক বাজারে সারের মূল্য হ্রাস-বৃদ্ধি হয়। বর্তমানে সারের মূল্য তুলনামুলকভাবে কম হওয়ায় আগামী অর্থ-বছরে ভর্তুকি বাড়াবার প্রয়োজন হবে না মর্মে আশা করা যায়।

সরকারি দলের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী জানান, দেশের ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার খাদ্যনিরাপত্তার নিশ্চিত করার জন্য সরকার নানা কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। খাদ্য উৎপাদন নিশ্চিতকল্পে সরকার শুধুমাত্র হাইব্রিড চাষাবাদের উপর জোর দেয়নি। ধান উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রকল্প ও কর্মসূচির মাধ্যমে হাইব্রিড ছাড়াও প্রতিকূল পরিবেশে উৎপাদনক্ষম (উফশী) জাতের বিভিন্ন ধানের আবাদ সম্প্রসারণ করা হচ্ছে।

সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী জানান, বাংলাদেশে পাম চাষ সম্প্রসারনের মাধ্যমে ভোজ্যতেলের উৎপাদন বৃদ্ধি করে ভোজ্যতেরের চাহিদা মিটানো সম্ভব। পামওয়েলের চাষ কৃষকদের মাঝে নতুনভাবে অভিযোজন করার প্রচেষ্টা চলছে। বর্তমানে বাংলাদেশে কিছু কিছু জেলায় বিচ্ছিন্নভাবে স্বল্প পরিসরে পামওয়েল চাষ হচ্ছে। আর বাংলাদেশের আবহাওয়া ও প্রকৃতি পামওয়েল চাষের উপযোগী। মালয়েশিয়ায় উৎপাদিত পামের কাঁদি সাধারণত ৪০ কেজির বেশি হয় না। কিন্তু‘ বাংলাদেশের টাঙ্গাইলে উৎপাদিত কাঁদির ওজন ৬০ কেজি থেকে ৬৫ কেজি পর্যন্ত পাওয়া গেছে। তবে এ বিষয়ে যথেষ্ট গবেষণা করে সিদ্ধান্ত নেয়া প্রয়োজন।

সশস্ত্রবাহিনীর সদস্য সংখ্যা ২ লক্ষাধিক ॥ স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য রহিম উল্লাহর প্রশ্নের জবাবে সংসদ কার্যে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আইনমন্ত্রী এ্যাডভোকেট আনিসুল হক জানান, সামরিক ও বেসামরিক মিলিয়ে বাংলাদেশ সশস্ত্রবাহিনীর বর্তমান সদস্য সংখ্যা ২ লাখ ৪ হাজার ৫৯৬ জন। এরমধ্যে সেনাবাহিনীতে ১ লাখ ৬২ হাজার ১২৫ জন, নৌবাহিনীতে ২৫ হাজার ৮১ জন ও বিমান বাহিনীতে ১৭ হাজার ৩৯০ জন।

তিনি জানান, সশস্ত্র তিনটি বাহিনীর নীতি নির্ধারণী কার্যক্রম সম্পন্নের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সরাসরি তত্ত্বাবধানে আর্মড ফোর্সেস ডিভিশন বা সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ পরিচালিত হচ্ছে। সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে ভিশন-২০৩০ প্রণয়ণ করে তা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাহিনী প্রধানগণ কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

সরকারি দলের আরেক সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী জানান, বেসামরিক পদে ও কার্যক্রমে অংশগ্রহণ এবং প্রেষণে পদায়নের ক্ষেত্রে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের কোন সুষ্পষ্ট নীতিমালা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.