সভ্যতার আলো

সভ্যতার আলো, তার লিখনী দিয়ে আরো উন্নত ও সমৃদ্ধশালী সভ্য জাতি গঠনে অনন্য ভূমিকা রাখবে

মোদীর ঘোষণায় আস্থা রাখছি ‌॥ প্রধানমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক : এবারে না হলেও শিগগির তিস্তা চুক্তি সইয়ের ব্যাপারে নরেন্দ্র মোদির আশ্বাসেই ভরসা রাখছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘পানিবন্টনে নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণায় আমরা আস্থা রাখছি; যদিও দিদি (মমতা ব্যানার্জি) না বলেছেন। এটা আমাদের ন্যায্য পাওনা। আমরা বিশ্বাস করি সমমর্যাদা এবং বন্ধুত্ব দিয়ে অনেক কিছু অর্জন করা সম্ভব। ঝগড়া করে সমস্যার সমাধান হয় না। বন্ধুত্ব দিয়েই দাবি আদায় হয়।’

 

চারদিনের সফরের শেষদিন আজ সোমবার সকালে নয়াদিল্লির ইমপেরিয়াল হোটেলে ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ভারতের বুদ্ধিজীবী মহল উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে সম্মান করি। বন্ধুত্বকে গুরুত্ব দেই। ছোট দেশ বড় দেশ বলে কোনো কথা নেই। স্বাধীন দুটি দেশ। আমরা এক সঙ্গে কাজ করবো। বাংলাদেশ-ভারত একসঙ্গে কাজ অব্যাহত রাখবে। শুধু এই দুই দেশ নয়, দক্ষিণ এশিয়ার মানুষদের আমরা উন্নত জীবন দিতে পারবো। দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র শত্রু দরিদ্রতা। এই শত্রুর বিরুদ্ধে একই সঙ্গে লড়তে হবে।

 

তিনি বলেন, ভারতের লোকসভায় সর্বসম্মতভাবে ল্যান্ড বাউন্ডারি চুক্তি পাশ হয়েছে। এটা একাত্তরের বন্ধুত্বের ধারা বজায় রেখেছে।

 

ভারতের গণতন্ত্রের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভারতের মানুষ ভাগ্যবান। গণতান্ত্রিক পক্রিয়া এখানে অব্যাহত আছে। কিন্তু বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক পক্রিয়া অব্যাহত রাখতে আমাদের লড়াই করতে হচ্ছে। বাংলাদেশে বারবার সামরিক শাসন গণতান্ত্রিক পক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করেছে। আমরা বিশ্বাস করি গণতন্ত্রই দিতে পারে সুশাসন, দারিদ্রমুক্ত সম্মানজনক একটি জাতি।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.