সভ্যতার আলো

সভ্যতার আলো, তার লিখনী দিয়ে আরো উন্নত ও সমৃদ্ধশালী সভ্য জাতি গঠনে অনন্য ভূমিকা রাখবে

তামিমের আফসোস যা নিয়ে

ক্রীড়া ডেস্ক : ১২ বছরের ক্যারিয়ারের ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত তামিম ইকবালের সেঞ্চুরি ১১টি। একাধিকবার যদি এ তারকা ৮০ রানে না আউট হতেন তবে ঐ সংখ্যাটা আজ থাকতো ডাবলেও বেশি। কিন্তু ব্যাপারটি মোটেও এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে পোড়ায় না। তার বেশি আফসোস থাকে বা ছিল খেলা শেষ করে আসতে না পারাটা।

 

আয়ারল্যান্ডে চলতি ত্রি-দেশীয় সিরিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন তামিম। সেদিনও এ বাঁহাতি ৮০ রানের ইনিংস খেলে দলকে জয়ের পথে রাখেন। কিন্তু পারেননি ম্যাচ শেষ করে আসতে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত ১৪ বার ৮০ ছুঁয়ে ১০০ করার আগেই সাজঘরে ফিরেছেন তামিম। অপরাজিত থেকেছেন আরও ৪ বার।

সেঞ্চুরির সুযোগ থাকার পরও না পারলেও যে কোন ব্যাটসম্যানেরই আফসোস থাকে। এটাই স্বাভাবিক। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ত্রি-দেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে তামিমের শটটা খারাপ ছিল না। শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের লেগ স্টাম্পে পড়া বল তামিম ফ্লিক করেছিলেন, টাইমিংও ভালোই ছিল। কিন্তু একটু হাওয়ায় ভেসেছিল বল আর গিয়েছে ফিল্ডারের নাগালে। জেসন হোল্ডার নিয়েছেন দারুণ ক্যাচ। এ ব্যাপারে শুক্রবার অনুশীলনের ফাঁকে তামিম বলেন, ‘আশিতে আউট হলে আফসোস হওয়ারই কথা। বেশিরভাগ সময়ই নিজের দোষে আউট হয়েছি। এমন কিছু করতে গিয়েছি, যা করার দরকার ছিল না। কিন্তু কিছু কিছু ক্ষেত্রে দুর্ভাগ্য ছিল।’

 

৮০ রানে আউট হলেও আক্ষেপ নেই তামিমের। তার শুধু আফসোস ভালো খেলেও ম্যাচ শেষ করতে না পারাটা। শুক্রবার এমনটাই জানিয়েছেন এ হার্ডহিটার, ‘সবশেষ ইনিংসটিতে যেমন, যে বল ছিল, সেই শটই খেলেছি। ভাগ্য খারাপ ছিল যে সোজা ফিল্ডারর হাতে চলে গেছে। ভালো ক্যাচও নিয়েছে। এসব ক্ষেত্রে আফসোস ততটা থাকে না। সেঞ্চুরির চেয়ে আমার বেশি আফসোস থাকে বা ছিল খেলা শেষ করে আসতে না পারা।’

 

এখন পর্যন্ত তামিম যতবার ৮০ রানে থেমেছেন সেগুলো যদি সেঞ্চুরিতে রূপ নিতো, তাহলে আজ এ বাঁহাতির ক্যারিয়ার আরও সমৃদ্ধ হতে। কিন্তু চট্টগ্রামের এ ক্রিকেটার এসব নিয়ে একটুও ভাবেন না। ব্যাপারগুলো মনে করবেন ক্যারিয়ার শেষ হলে, ‘আফসোস হতে পারে হয়তো ক্যারিয়ার শেষে, যখন পেছন ফিরে তাকাব। যতবার আশিতে আউট হয়েছি, তার অর্ধেকও সেঞ্চুরিতে নিতে পারলে ক্যারিয়ার হয়তো আরও সুন্দর দেখাত। কিন্তু যা হয়ে গেছে, হয়েই গেছে। আফসোস করেও লাভ নেই। আশা করব যে সামনেও যদি সুযোগ আসে, ছুঁড়ে যেন না দেই। যদি ভালো বলে আউট হই বা ভালো শট খেলেও আউট হয়ে যাই, তাহলে অন্য কথা। কিন্তু ছুঁড়ে যেন না আসি।’

 

আগামী সোমবার ত্রি-দেশীয় সিরিজে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আপাতত ঐ ম্যাচে আরো ভাল কিছু করতেই নিজেকে তৈরি করছেন তামিম।