সভ্যতার আলো

সভ্যতার আলো, তার লিখনী দিয়ে আরো উন্নত ও সমৃদ্ধশালী সভ্য জাতি গঠনে অনন্য ভূমিকা রাখবে

নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটালে কোনো প্রার্থীকে ছাড় দেওয়া হবে না-নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম

নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটালে কোনো প্রার্থীকে ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন,  কোনো প্রার্থী আইন লঙ্ঘন করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে দ্বিধা করবে না নির্বাচন কমিশন। আমরা একটি আইনানুগ নির্বাচন করতে চাই, যা সারা বিশ্বের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। সেজন্য যে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার, তাই করতে বদ্ধপরিকর নির্বাচন কমিশন।

বুধবার রংপুর জেলা পরিষদ কমিউনিটি সেন্টার মিলনায়তনে রংপুরের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা ও স্থানীয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম আরও বলেন, আমাদের দায়িত্ব হলো ভোটের মাঠ সমতল রাখা। এজন্য মাঠ প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে মতবিনিময় করা হলো। ভোটারদের জন্য মাঠ সমতল রয়েছে। এমন কোনো ভোটার নেই যার নাম ভোটার তালিকায় নেই, এমন কোনো ভোটার নেই যিনি ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবেন না। এখন যদি প্রার্থী ও রাজনৈতিক দলের কথা বলা হয়, তবে আমি সমতল করতে পারবো না। কারণ তারা নিজেরাই বলেন আমরা ছোট দল, আমি তো ছোট দলকে বড় দলে পরিণত করতে পারবো না।

তিনি আরও বলেন, সব প্রার্থীর ক্ষেত্রে আচারণ ও আইনের প্রয়োগ সমভাবে হবে। এর অন্যথা আমরা করি না। জামায়াত ইসলামের প্রার্থীদের বিষয়ে হাইকোর্টে রুল প্রসঙ্গে রফিকুল ইসলাম বলেন, জামায়াত বলে কোনো রাজনৈতিক দল বর্তমানে নির্বাচন কমিশনের নিবন্ধিত নয়। হাইকোর্ট সিদ্ধান্ত চেয়েছে, আমরা এখন পর্যন্ত বসিনি।

তিনি বলেন, উত্তরাঞ্চলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী জঙ্গি তৎপরতা সাফল্যের সঙ্গে দমন করেছে। নির্বাচনের সময় জঙ্গিরা যেন মাথা চাড়া না দিতে পারে সেদিকে আমাদের সজাগ দৃষ্টি রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভোটকেন্দ্র ও কেন্দ্রের বাইরে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে নির্বাচনে নারীদের অংশগ্রহণ ও সুরক্ষা প্রদানের লক্ষ্যে সচেতনতামূলক র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ জয়নুল বারী, রংপুর রেঞ্জের ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য প্রমুখ। এতে রংপুরের সুশীল সমাজ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।